Mohamushkil at First Flush Golpark

চা জিনিসটা বাঙালির, বা বাঙালির ই বা বলি কেন ? যেকোনো লোকাল জনগণেরই একটা পুরোনো প্রেমের মতোন। মানে, বুঝুক আর না বুঝুক, বোঝার একটা আপ্রাণ চেষ্টা সে চালিয়ে যাবেই। আমার সীমিত অভিজ্ঞতাতে দেখেছি দার্জিলিং চা ছাড়া চা যেন তার কৌলিন্য হারায় , মানে আমি যে খুব একটা কিছু বুঝি তা নয় , কিন্তু তা ছাড়া আমাদের চলে না। তা সৌভাগ্যবশতঃ ইদানিং কলকাতায় বেশ কিছু চা – বুটিক খুলেছে যাঁরা এই চা বস্তূটিকে বোঝেন ভালো। আর আপ্রাণ চেষ্টা চালান যাতে আমরা কিছুটা বুঝে বা ভালোবেসে চা টাকে খাই। তেমনই একটি জায়গা হলো এই first flush.

axis bank গোলপার্কের পাশের ছোট্ট গলিটা ধরে ঢুকে পড়ুন , এবং চোখ কান বুঁজে চলতে থাকুন। বাঁদিকে ঘুরেই এট্টুখানি গিয়েই লাল রঙের দরজা , খুলে ঢুকে পড়ুন- দক্ষিণ কলকাতার একফালি দার্জিলিং এ ……

প্রথমে ঢুকেই দেখবেন একফালি বুটিক , বেশ সুন্দর আর শৌখিন সব জামাকাপড়, প্রসাধনের জিনিস। ভেতরে ঢুকে যান- বসে পড়ুন একটা চেয়ার টেনে আর ভালো করে সময় নিয়ে মেনুকার্ড তাকে দেখুন।  দার্জিলিং চায়েরই দেখবেন বহুরকম option , কারোর সাহায্য নিতে ঘাবড়াবেন না – আমি সাজেস্ট করবো হালকা গন্ধের জন্য ওনাদের first flush টা নিতে – গিদ্দাপাহাড় ফার্স্ট ফ্লাশ।  মানে আমার মতন চা-কানা হলেও মন্দ লাগবে না।  চা টা এসে গেলে সময় কাটাতে পারেন সঙ্গের বালিঘড়ি টাকে নিয়ে।  ৩ মিনিট লাগবে।  হালকা এক চুমুক দিন – মন্দ লাগবে না – এটুকু পাক্কা।

Giddapahar first flush

তা এবার বঙ্গসন্তান যখন, চায়ের সঙ্গে টা না হলে ঠিক জমে না।  তা এখানে সে ব্যবস্থাও মন্দ নয়।  এখানে নতুনআমদানি হয়েছে ব্রেকফাস্ট প্লেটারের।  সোজা কথায় একগাদা মাংস (এনারা আবার সসেজ টা আনান কোনো এক বাড়ির থেকে, ফলে স্বাদে পুরো আলাদা) সঙ্গে ডিম্, টোস্ট  , ফলের রস – সোজা কথায় এক বিশাল আয়োজন।  যথারীতি টোস্ট এ ব্রাউন এবং সাদা , দুধরনেরই অপশন আছে।  লড়ে যান, মন্দ তো লাগবেই না – একজনের পক্ষে একটি শেষ করা একটু চাপের।  আলাদা করে আমার বন্ধু নিয়েছিল চীজ অমলেট (সঙ্গে টোস্ট বিনা পয়সায়) – সেটা তো কখনোই খারাপ হয় না।  ভেজ platter ও একবার নিতে দেখেছিলাম আমার এক বঁধুকে – আমার ঠিক জমেনি, তবে তার দিব্বি লেগেছিলো।  সেদিন আমি শুধু এক প্লেট পর্ক সসেজ এর ওপরেই ক্ষান্ত দিয়েছিলাম।

Non-veg breakfast platter
Veg breakfast platter
Cheese omlette with toast

তা, এই বস্তূ টি এনারা সারা দিনই বানান- ফলে চাপ নেওয়ার কোনো কারণ নেই।  মন্দ লাগবে না- অন্তত আমার তো লাগে নি।  আর সঙ্গে দার্জিলিং চা (I also love their silver needle variety – its something different), খারাপ তো যেতেই পারে না। এটির সঙ্গে আবার ফিশ ফিঙ্গার টাও বেশ জমে- তবে সে আলাদা গল্প …..

Silver needle tea
Fish finger

Bon apetite !!!

Comments and critics welcome.

I can be reached at 990352822 / indrajit.lahiri@ymail.com .

Leave a Reply